সর্বশেষ

টাঙ্গাইলে কাদের সিদ্দিকীসহ ১৩ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল

প্রতিনিধি | আপডেট: ১১:৫০, ডিসেম্বর ০২ , ২০১৮

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঋণ খেলাপির দায়ে জাতীয় ঐক্যফন্টের অন্যতম প্রধান নেতা কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর আব্দুল কাদের সিদ্দিকীসহ টাঙ্গাইলে ১৩ প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র বাতিল করেছে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা।


রবিবার জেলা রিটানিং কর্মকর্তা মো.শহীদুল ইসলামের কার্যালয়ে মনোনয়ন পত্র যাচাই বাছাই শেষে বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী টাঙ্গাইল ৪ (কালিহাতী) ও টাঙ্গাইল -৮ (বাসাইল-সখীপুর) আসনে মনোনয়ন পত্র বাতিল করা হয়েছে। অপর দিকে কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়ন বাতিল হলেও টাঙ্গাইল-৮ আসনে তার মেয়ে কুঁড়ি সিদ্দিকী এবং কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের কেন্দ্রিয় সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান তালুকদার বীর প্রতীকের মনোনয়ন পত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া টাঙ্গাইল-৪ আসনে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের প্রার্থী কাদের সিদ্দিকীর ছোট ভাই শামীম আল মনসুর আজাদ সিদ্দিকী ও লিয়াকত আলীর মনোনয়ন বৈধ হয়েছে।


কাদের সিদ্দিকীর বড় ভাই বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি মন্ডলীর সাবেক সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীর টাঙ্গাইল-৪ আসনে এবং ছোট ভাই মুরাদ সিদ্দিকীর টাঙ্গাইল-৫ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে দেয়া মনোনয়নপত্র বৈধ হয়েছে।


টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসকের  সভাকক্ষে যাচাই বাছাই চলাকালে কাদের সিদ্দিকীর ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান সোনার বাংলা প্রকৌশল সংস্থা ঋন খেলাপির তালিকায় আছে বলে অগ্রনী ব্যাংক টাঙ্গাইল শাখার সহকারি মহাব্যবস্থাপক মো.নাজিম উদ্দিন রিটার্নিং কর্মকর্তাকে জানান।
এসময় রিটার্নিং কর্মকর্তা কাদের সিদ্দিকীর বক্তব্য জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার বলার তেমন কিছু নেই। অনেক বড় অর্থশালী মানুষ সালমান এফ রহমানের চার হাজার ৫৪৩ কোটি টাকা ২৫ বছরের জন্য বিনা সুদে ব্লক  করা আছে। এটা সত্য যে ব্যাংক আমাদের কাছে টাকা পায়। আমরা সে টাকা দেয়ার জন্য প্রস্তুত আছি। ব্যাংকের ঋন পরিশোধের জন্য কি কি প্রচেষ্টা করেছেন, তার বর্ণনা দিয়ে বলেন, ‘যতক্ষন এ সরকার থাকবে, এ ধরনের সরকার থাকবে, আমি হয়তো ভোটে দাড়াতে পারবো না।
এ নিয়ে তিনবার ভোটে দাড়ানো থেকে বঞ্চিত হলাম। তবে একজন নাগরিক হিসেবে আমার প্রচেষ্টা থাকবে।’ মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়ার পর এক প্রশ্নের জবাবে কাদের সিদ্দিকী বলেন, যা হয়েছে সব সরকারের ইচ্ছাতেই হয়েছে। তিনি এ ব্যাপারে উচ্চ আদালতে আপিল করবেন বলেও জানান।


বাতিল হওয়া অন্যরা হচ্ছেন টাঙ্গাইল -১(ধনবাড়ী-মধুপুর) আসনে ঋণ খেলাপির দায়ে বিএনপি’র প্রার্থী ফকির মাহাবুব আনাম স্বপন,টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসনে শিক্ষাগত যোগ্যতার সার্টিফিকেট প্রদান না করায় ন্যাশনাল পিপলস পার্টির প্রার্থী মো.চাঁন মিয়া, হলফ নামায় পর্যাপ্ত ভোটারের স্বাক্ষর না থাকায় বিএনএফ এর প্রার্থী মো.আতাউর রহমান খান,
টাঙ্গাইল-৪ (কালিহাতী) আসনে হলফ নামায় ভোটারদের পর্যাপ্ত স্বাক্ষর না থাকায় স্বতন্ত্র প্রার্থী বাকির আলী ও আবুল কাশেম,
টাঙ্গাইল-৬ (নাগরপুর-দেলদুয়ার) আসনে ঋণ খেলাপির দায়ে বিএনপি প্রার্থী নুর মোহাম্মদ খান, হলফ নামায় ভোটাদের পর্যাপ্ত স্বাক্ষর না থাকায় ন্যাশনাল পিপলস পার্টির  মামুনুর রহমান, টাঙ্গাইল-৭ (মির্জাপুর) আসনে ঋণ খেলাপির দায়ে খেলাফত মজলিসের প্রার্থী মজিবুর রহমান, টাঙ্গাইল-৮ (বাসাইল-সখীপুর) আসনে নমিনেশন পেপারে লেখা কাটাকাটি ও ফ্লুইড ব্যবহার করায় খেলাফতে মজলিসের প্রার্থী আব্দুল লতিফ, ঋণ খেলাপির দায়ে জাতীয় পার্টির  প্রার্থী কাজী আশরাফ সিদ্দিকী, বিদ্যুৎ বিল বকেয়া থাকায় স্বতন্ত্র প্রার্থী কাজী শহীদুল ইসলাম।
 

পাঠকের মন্তব্য
লগইন করুন
লগইন মনে রাখুন