সর্বশেষ

বীরমুক্তিযোদ্ধাদের সাথে তামাশাকারীদের জনগণ ক্ষমা করবে না .এনডিপি

প্রতিনিধি | আপডেট: ১৩:৩৭, ডিসেম্বর ০১ , ২০১৮



ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি- এনডিপি’র চেয়ারম্যান খোন্দকার গোলাম মোর্ত্তজা বলেছেন, বিজয়ের ৪৭ বছরের ১ম দিনে আমরা স্পষ্টভাবে বলতে চাই, যারা বীরমুক্তিযোদ্ধাদের সাথে তামাশা করবে এবং নিজেদেরকে মুক্তিযুদ্ধে ফেরীওয়ালা ঘোষণা দিয়ে প্রতারণা করবে তাদের জনগণ কোনদিনও ক্ষমা করবে না। ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর অর্জিত হয় মহান স্বাধীনতা। বিশে^র মানচিত্রে সার্বভৌম-স্বাধীন দেশ হিসেবে নিজেদের স্থান করে নেয় বাংলাদেশ। বিজয় ছিল আনন্দ, উল্লাস ও গৌরবে। একই সঙ্গে ছিল প্রিয়জন হারানোর শোক।

৪৭ বছর পরেও বীরমুক্তিযোদ্ধারা যখন ভিক্ষা করে, রিক্সা চালায় তখন জাতি হিসেবে আমরা লজ্জা পায়। বীরমুক্তিযোদ্ধাদেরকে সবার উপরে রাখতে হবে। যারা ৭১ সালে শহীদ হয়েছেন তাদের স্মৃতিকে নতুন প্রজন্মের কাছে ছড়িয়ে দিতে হবে। তিনি সকল শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

এনডিপি’র মহাসচিব মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা বলেন, বিজয়ের মাসেই একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। আমরা কোনভাবেই পরাজিত শক্তিকে ক্ষমতায় দেখতে চাই না। যাদের মুখে শেখ ফরিদ আর বগলে ইট তাদেরকে চিহ্নিত করতে হবে। মুক্তিযুদ্ধ কোন একক দলের কৃতিত্ব নয়, গোটা জাতির কৃতিত্ব। সেদিন কৃষক-শ্রমিক, সাধারণ মানুষ জীবন বিপন্ন করে একটি লাল-সবুজ পতাকার জন্য জীবনকে উৎসর্গ করেছিলেন। কাউকে এমপি-মন্ত্রী বানানোর স্বপ্ন তাদের ছিল না। তাদের স্বপ্ন ছিল সুন্দর একটি বাংলাদেশের। আমরা কি ৪৭ বছর পর বুকে হাত দিয়ে বলতে পারি সুন্দর বাংলাদেশ উপহার পেয়েছি। নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের মূল শক্তি হিসেবে নিজেদের গড়ে তুলতে হবে।

১লা ডিসেম্বর শনিবার সকাল ১১টায় এনডিপি’র কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বিজয়ের ৪৭ এর প্রথম প্রহরে শহীদ বীরমুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হয়। স্মরণ সভায় আরো বক্তব্য রাখেন এনডিপি’র প্রেসিডিয়াম সদস্য মনিরুজ্জামান মনির, ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ প্রিন্স, যুগ্ম মহাসচিব রাজু আহম্মেদ, কেন্দ্রীয় মহিলা নেত্রী জুলেখা জুঁই, হায়াত মাহমুদ সহ প্রমুখ।

বীরমুক্তিযোদ্ধা তারামন বিবি বীরপ্রতীকের মৃত্যুতে সভায় গভীর শোক প্রকাশ করা হয় এবং শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করা হয় এবং সকল শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের শ্রদ্ধা জানানোর জন্য ১ মিনিট দাঁড়িয়ে নীরবতা পালন করা হয় এবং তাদের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ দোয়া মোনাজাত করা হয়।

সভায় আগামী ৫ ডিসেম্বর এনডিপি’র শ্রম বিষয়ক সম্পাদক মো. আলম হোসেনের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে স্মরণ সভা করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এছাড়াও এনডিপি’র প্রেসিডিয়াম সদস্য হাবিবুর রহমান চৌধুরী এবং এনডিপি’র চেয়ারম্যানের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য, সাবেক জেলা জজ মিয়া মোহাম্মদ শরীফুল ইসলামের অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করা হয় এবং শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করা হয়।

পাঠকের মন্তব্য
লগইন করুন
লগইন মনে রাখুন